ডাক্তারের বাড়িতে ঢিল ছুঁড়ে মেরে কি অমরত্ব পেয়েছেন?


এপ্রিল ৩০ ২০২০

ডাঃ শিরীন সাবিহা তন্বী

ডাক্তার সরকারের নির্দেশে হাসপাতালে যাচ্ছেন। সরকারের নির্দেশে বা তার দায়িত্ববোধ এর জায়গা থেকে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন।

সাধারণ মানুষ গন লকডাউন মানছেন না।শুরুর দিকে প্রবাসী আত্মীয় বন্ধু দের সাথে আড্ডা ফূর্তি,লং ট্যুর চলমান রেখেছেন। যখন আপনি নিজে আক্রান্ত হয়েছেন।আপনি রুগী হয়ে হাসপাতালে গেছেন।

প্রতিটি হাসপাতালে ফ্লু কর্নার থাকা সত্ত্বেও আপনি দুর্নীতি করে ইচ্ছা করে আপনার করোনার উপসর্গ, প্রবাসী আত্মীয় দের সাথে সময় কাটানো কিংবা জার্নির ইতিহাস গোপন করেছেন।

শুরুর দিকে হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা,স্যাম্পল কালেকশনের মতো সেনসিটিভ ক্ষেত্রে ও পিপিই n95 মাস্ক এবং গগলস সহ ডাক্তার দের দিতে পারে নাই।

মানবতার কান্ডারী দুঃসাহসী চিকিৎসক গন আধা নিরাপত্তাহীন অবস্থাতেই করোনার রুগীর চিকিৎসা দিয়েছে।
আর তথ্য গোপনকারী অপরাধী রুগীদের কে একেবারেই প্রটেকশন ছাড়াই চিকিৎসা দিয়েছেন।

লটারির খেলার মতো আপনার অপরাধে অরক্ষিত চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মী গন যারা ঘরে বুড়ো বাবা মা, পরিবার পরিজন, ছোট বাচ্চা রেখে লকডাউনের সময় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ডাবল ত্রিডাবল ভেহিকেল ফেয়ার দিয়ে হাসপাতালে আসে তাদের করোনা সংক্রমিত করে দিলেন।

ডাক্তার হাসপাতালের কাজ করে বাড়িতে যাচ্ছেন। বাড়িতে পরিবার আছেন। আপনি শুরুতে মিথ্যা বলেছেন। পরে আপনার এক্স রে দেখে বা অন্য ভাবে করোনা শিওর হতে হতে ডাক্তার এর সাথে সাথে তার পরিবার ও আক্রান্ত।

এবার এই আপনারাই বাড়িওয়ালা। আপনারাই এলাকাবাসী।

বাড়িওয়ালা হয়ে ঐ চিকিৎসা দেয়া ডাক্তার কে বাড়ি থেকে নামিয়ে দিচ্ছেন।

আপনি হয়তো এলাকার তাগড়া জোয়ান। জনপ্রতিনিধি। আপনি ত্রান চোর। আপনি ছুটি প্রাপ্ত ঘুষখোর। আপনি যে কেউ।

কিন্তু আপনারা একত্রে একদল পিশাচ। আপনারা চিকিৎসা সেবা দিতে গিয়ে আক্রান্ত পরিবার কে এলাকা ছাড়া করবার জন্য বাড়িতে ঢিল ছোড়েন।

এই বাঙালি দের জন্য এক দলা থু থু।

হওয়া উচিত ছিল ঐ পরিবারের জন্য পুরো শহরের সবার বাড়ি থেকে খাবার আসবে।শুভকামনা সহ কার্ড আসবে।সবার থেকে দোয়া আসবে।

আপনারা দু লাইন বাংলা লিখতে পারা থেকে হাইলি এডুকেটেড ডাক্তারদের কসাই বলেন? আপনার কি?অমানবিক পশু? চামার।

এই ধরনের অন্যায়ের প্রতিবাদে সারা দেশের ডাক্তার গন এক বেলা চিকিৎসা না দিলে আপনাদের কি হবে ভেবেছেন?

সময় আছে।ভাবুন।
আপনার চিকিৎসা দেয়া যেমন ডাক্তার স্বাস্থ্যকর্মী দের দায়িত্ব।ডাক্তার তার পরিবার আক্রান্ত হলে তাদের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া আপনার দায়িত্ব।

আমি আমার দায়িত্ব পালন করছি। আপনি আপনার টা করুন।নইলে গার্মেন্টস কেবল খুলেছে।সংক্রমনের কঠিন দিন সামনে। আজ আপনি সুস্থ বলে কাল অসুস্থ হবেন না কে বলেছে?

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
২৬৬,৪৪৫
সুস্থ
১৫৩,০৮৬
মৃত্যু
৩,৫১৩

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২,৯৯৫
সুস্থ
১,১১৭
মৃত্যু
৪২
সূত্র: আইইডিসিআর

ভাষা সৈনিক চিকিৎসক

নিউজ

মুক্তমত

সংগঠন

হাসপাতাল