যে কারণে এই মুহূর্তে হু হু করে বাড়ছে মোদির জনপ্রিয়তা


মে ২ ২০২০

বিশ্বব্যাপী এখন আতঙ্ক করোনাভাইরাস নিয়ে। এরপর প্রভাব পড়েছে ভারতেও। দেশটিতেও প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যেই সেখানে হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গেছে মৃতের সংখ্যাও। অথচ এমন আতঙ্কের মধ্যেও দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তায় একটুও ভাটা পড়েনি। বরং আগের চেয়ে অনেক বেশি মানুষ তার নেতৃত্বে বিশ্বাস রাখছেন। ভারতবাসীর একটা বড় অংশের ধারণা নরেন্দ্র মোদিই এই সংকটের সময়ে দেশকে নেতৃত্ব দেওয়ার উপযুক্ত ব্যক্তিত্ব।

Morning Consultant নামের এক আমেরিকান সংস্থার সমীক্ষা বলছে, করোনা পরিস্থিতির আগের তুলনায় বর্তমানে নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা অনেকটাই বেড়েছে। এই মুহূর্তে ভারতের ৮৩ শতাংশ মানুষ মোদির ওপর ভরসা রাখছেন। আগে ছিল ৭৬ শতাংশ। অর্থাৎ করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর মোদির জনপ্রিয়তা আরও ৭ শতাংশ বেড়েছে। এদিকে দুই দেশীয় সমীক্ষক সংস্থা IANS এবং C-Voter তাদের করোনা ট্রাকারে দেখাচ্ছে, মোদির জনপ্রিয়তা আরও অনেকটা লাফিয়েছে। ৭৬.৮ থেকে বেড়ে তা হয়েছে ৯৩.৫ শতাংশ। অর্থাৎ করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর প্রায় ১৬ শতাংশ বেড়েছে প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা।

২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার আগে থেকেই দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হিসেবে উঠে এসেছেন নরেন্দ্র মোদি। ৬ বছর ক্ষমতায় থাকার পরও তার সেই জনপ্রিয়তা অব্যাহত। তবে করোনা হানার আগে বেশ বেকায়দায় পড়ে গিয়েছিলেন মোদি। দেড় দশকের মধ্যে সবচেয়ে ধীর গতিতে চলছিল অর্থনীতি। চাকরি হারাচ্ছিলেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। দিল্লি সহিংসতার মতো সাম্প্রদায়িক ঘটনা প্রশ্ন তুলেছিল মোদির প্রশাসনিক দক্ষতা নিয়েও। কিন্তু কারোনার বদৌলতে এসব নেগেটিভ ফ্যাক্টর এখন অতীত । ভারতবাসী মনে করছে করোনা মোকাবিলায় যে পথে মোদি এগোচ্ছেন, তাতেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে সংক্রমণ। সঠিক সময়ে লকডাউন জারি করার সিদ্ধান্ত মোদির নেতৃত্বের উপর বিশ্বাস আরও বাড়িয়েছে। ফলে ফের জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠে এসেছেন নরেন্দ্র মোদি। 

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
২৬৬,৪৪৫
সুস্থ
১৫৩,০৮৬
মৃত্যু
৩,৫১৩

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২,৯৯৫
সুস্থ
১,১১৭
মৃত্যু
৪২
সূত্র: আইইডিসিআর

ভাষা সৈনিক চিকিৎসক

নিউজ

মুক্তমত

সংগঠন

হাসপাতাল